প্রিয়কে আঁকার অভিপ্রায়ে উপলব্ধির ক্যানভাসে

অসীম শূণ্যতা রাতের আঁধারে
নির্লজ্জ মন সাদা রেখা টানে
ভেসে উঠে চাঁদ, তারা
খেলে যায় বিক্ষিপ্ত সত্তা।

ভাবলেই ঝরতে চায় এক পাক্ষিক সময়হীনতা
উল্কার মত বিলীন হতে যায়
মাঝে পিণ্ড হয়ে জ্বলে উঠে সাদা আলোয়
কেঁপে উঠে আর চিৎকারে প্রকাশ ঘটায়।
ভেঙ্গে যায় রাতের মঞ্চ,
এলোমেলো সাদা রেখা ধূমকেতুর মতন
দিক বিদিক ছুটতে থাকে,
প্রিয়কে আঁকার অভিপ্রায়ে উপলব্ধির ক্যানভাসে।
স্পষ্ট থেকে স্পষ্ট, নিখুঁত থেকে নিখুঁত,
ক্রমাগত ফুটে উঠা জীবন্ত প্রিয়।

হাতছানি দিয়ে জানান দেয় বিক্ষিপ্ত সত্ত্বার অবস্থান
চমকে ফেটে পরে সব,
সময় নিমিষে ব্যস্তভাবে পালাতে থাকে
প্রচণ্ড নিস্তব্ধতার মাঝে বিক্ষিপ্ত সত্ত্বা
কান চেপে রুখতে চায় তার সৃষ্টির ধ্বংস যজ্ঞ,
পারে না বরং ছেয়ে যায় ব্যর্থতায়,
আর রূপান্তরিত হয় রাতের শূণ্যতায়।