যদি পিঁপড়ে হতাম

যদি পিঁপড়ে হতাম
বেশ হত বেশ হত
এক টুকরা চিনিতে সারা বেলা কেটে যেত
কত বিশাল অন্তত মনে হত
ছোট্ট পৃথিবীটা আরও বড় হত

মৃত্যু কত সহজ হত
সংখ্যায় হতাম শত শত
নিঃশেষ হত না পৃথিবীর সম্পদ যত

কিন্তু মানুষ হয়ে জন্ম নিয়ে
কত সহজেই খেয়ে নিচ্ছি
গোটা ধরণী
ছিঃ ছিঃ লজ্জা।

তুমি

তোমাকে যতবার ভেবেছি কল্পনায়
তা থেকে বেশি এসেছ তুমি বাস্তবতায়,
তোমাকে যত লিখেছি কবিতা খাতার পাতায়
তা থেকে বেশি জমা ছিল শব্দ গুচ্ছ তোমার সঞ্চিতায়,
ভালোবাসা বলে কাকে উত্তর খুঁজতে পড়েছিলাম বেড়াজালে
সবার অন্তরালে এই তুমি মানেটা কত সহজে শিখিয়ে দিলে,
বেঘোরে যখন চেয়েছি বাঁচার মতন বাঁচতে এই বসুধায়
সঙ্গ দিয়েছ সাহস দিয়েছ সাথী হয়েছে সহযাত্রায়।

সে এদিন চলছে

সেদিন গিয়েছে
এক মেয়েকে দেখে তন্ময় হয়ে বসেছিলাম
সেদিন গিয়েছে
ঐ মেয়েটিকে নিয়ে কত কি ভেবেছিলাম
সেদিন গিয়েছে
গোপনে গোপনে কত কি কাগজে কলমে লিখেছিলাম।।

তবে সেদিন এসেছিল
মেয়েটি আমার অপেক্ষায় বসে ছিল
সেদিন এসেছিল
ওই মেয়েটি আমাকে কত কত ভেবেছিল
সেদিন এসেছিল
কত কি কাগজে কলমে লিখেছিল।।

তারপর সেদিন চলছে
দুজন এক সাথে বসে আছি
দুজন এক সাথে কত কি ভাবছি
দুজন এক সাথে কাগজে কলমে কত কি লিখছি।।